জামালপুরবিশেষ প্রতিবেদনসকল খবর

কৈডোলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে বাড়ি ঘরে হামলা-ভাংচুর॥ মামলা দায়ের

20210617 161339

নিজস্ব প্রতিনিধি :

জামালপুর সদর উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের কৈডোলা জাফরশাহী গ্রামের মৃত আব্দুল কুদ্দুছের পুত্র মোঃ আঃ রহিম (৩৮) এর জমি দখল করার উদ্দেশ্যে দেশী অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে গত ৯ এপ্রিল হামলা ও ভাংচুর চালায় একই গ্রামের মোঃ আঃ সাত্তার (৫০), দুদু মিয়া (৫৫), লাল মিয়া (৬০), আঃ হালিম (৩৮), মন্টু মিয়া (৩২) গং। মামলা সূত্রে জানা যায়, আঃ রহিমের পিতা মৃত আঃ কুদ্দুছ জমি ক্রয় করে সেখানে পরিবার পরিজন নিয়ে বাড়ি ঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছিল। কিন্তু একই গ্রামের মোঃ আঃ সাত্তার, মোঃ দুদু মিয়া গং ওই জমি দখল করার জন্য প্রতিনিয়ত হুমকি দিয়ে আসছিল। যার কারনে ঘটনার আগে আসামীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে ১৪৪ ধারা এবং একটি ১০৭/১১৭ (সি) ধারায় মামলা করেন আঃ রহিম। মামলা হওয়ার পর বিবাদীরা আরো উগ্র হয়ে স্থানীয় প্রভাবশালীদের যোগসাজসে ওই জমি দখল করার জন্য বাড়ি ঘরে হামলা ও লুটপাট চালায়। এ সময় আসামীরা আঃ রহিমের স্ত্রীর গলার একটি স্বর্ণের চেইন যার আনুমানিক মূল্য ৩৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। সেই সাথে তাকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। এছাড়া ঘরের ট্রাংক এর তালা ভেঙ্গে নগদ ২০ হাজার টাকা চুরি করে নেয়। সেই সাথে ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভেঙ্গে ফেলে যাতে তার ক্ষতিসাধিত হয় আনুমানিক ৩০ হাজার টাকার। এই ঘটনায় আঃ রহিম আদালতে আরেকটি মামলা দায়ের করলে এসআই মোঃ খায়রুল ইসলাম ঘটনা তদন্ত করে সত্যতা প্রমাণ পায়। এবং আসামীদের বিরুদ্ধে ১৪৩, ৪৪৭, ৪৪৮, ৩২৩, ৩৫৪, ৩৭৯, ৩৮০, ৪২৭, ৫০৬, ১১৪ দ-বিধিতে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। যার নং- ২৫৩। মামলা হওয়ার পর থেকে প্রভাবশালী আঃ সাত্তার, দুদু গং ওই মামলা প্রত্যাহারের জন্য বিভিন্নভাবে আঃ রহিমকে হুমকি দিয়ে আসছে। এ বিষয়ে আঃ রহিম বলেন, আমার বাবা জমিটি ক্রয় করেন। আমি পরিবার পরিজন নিয়ে সেখানে বাড়ি ঘর নির্মাণ করে দীর্ঘদিন যাবৎ বসবাস করে আসছি। কিন্তু আঃ সাত্তার, দুদু গং ওই জমি দখল করার জন্য বারবার স্থানীয় প্রভাব খাটিয়ে আমাদের উপর হামলা করে আসছে তারা। এ নিয়ে আমি আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছি। মামলা হওয়ার পর থেকে আসামীরা আমাকে হত্যা ও পরিবারের ক্ষতিসাধন করার জন্য হুমকি দিয়ে আসছে। আমি পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button