জামালপুরবাংলাদেশ সংবাদরাজনীতিসকল খবরসারা দেশ

জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের সেবারমান উন্নয়নে নানামূখি সিদ্ধান্ত

%25E0%25A6%25A6%25E0%25A7%2588%25E0%25A6%25A8%25E0%25A6%25BF%25E0%25A6%2595%2B%25E0%25A6%25B8%25E0%25A6%25A4%25E0%25A7%258D%25E0%25A6%25AF%25E0%25A7%2587%25E0%25A6%25B0%2B%25E0%25A6%25B8%25E0%25A6%25A8%25E0%25A7%258D%25E0%25A6%25A7%25E0%25A6%25BE%25E0%25A6%25A8%25E0%25A7%2587%2B%25E0%25A6%25AA%25E0%25A7%258D%25E0%25A6%25B0%25E0%25A6%25A4%25E0%25A6%25BF%25E0%25A6%25A6%25E0%25A6%25BF%25E0%25A6%25A8

মোঃ সাইদুর রহমান সাদি ।।

জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে মানসম্মত কোনরুপ চিকিৎসেবা না পেয়ে জামালপুরের বিশিষ্ট সাংবাদিক শফিক জামান লেবুর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে নড়েচড়ে বসেছে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগে। এরই অংশ হিসেবে ১৫ এপ্রিল ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জামালপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ প্রকৌশলী মোজাফ্ফর হোসেন।
সভায় জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসেবার ক্ষেত্রে নানা অসঙ্গতি, অনিয়ম উঠে আসে। বিশেষ করে হৃদরোগ, কিডনিরোগ বিশেষজ্ঞ না থাকা, যে কোন রোগীকে কোনরুপ পরীক্ষা নিরীক্ষা না করেই ময়মনসিংহে স্থানান্তর করা, দালালদের অসহনীয় পর্যায়ের দৌরাত্ম, চিকিৎসক এবং নার্সদের রোগীবান্ধব আচরণ না থাকা, শুক্রবার ও অন্যান্য সরকারি ছুটির দিনগুলোতে ইনডোরে ডাক্তার না থাকা, বিশেষজ্ঞকোন চিকিৎসক রাতের বেলায় হাসপাতালে না থাকা, সিসিও না থাকাসহ মানসম্মত চিকিৎসা সেবা বিষয়ে কমিটির সদস্যগণ উল্লেখ করেন। প্রথম বারের মতো সংসদ সদস্য হয়ে হাসপাতাল কমিটির সভায় উপস্থিত হয়ে আলহাজ প্রকৌশলী মোজাফ্ফর হোসেন তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
সংশ্লষ্ট সভাসূত্র জানাযায় হাসপাতালে ১০টি জ্যৈষ্ঠ বিশেষজ্ঞ পদ থাকলেও সবগুলো পদই শুন্য। এ ছাড়া মেডিসিন, শিশু, গাইনী, অর্থোসার্জারি, ইএনটি, এ্যানাসথেসিয়া, কার্ডিওলজি, চর্ম ও যৌন, সার্জারি ও চক্ষু বিশেষজ্ঞ নাই। তিনজন জুনিয়র বিশেষজ্ঞ এবং পাঁচজন চিকিৎসা কর্মকর্তা পদে লোক নেই। হাসপাতালে মোট ৪৬ জন চিকিৎসকের মধ্যে ১৮টি পদ শুন্য রয়েছে। এ অবস্থায় মানসম্মত চিকিৎসা সেবাদানে জরুরী ভিত্তিতে শুন্য পদ পুরণের জন্য সংসদ সদস্যের নিকট জোর দাবী জানান।
দালালদের হাত থেকে রক্ষা, সেবার মান নিশ্চিত করা এবং নানা হয়রানী হাত থেকে রক্ষায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এরমধ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারি বৃদ্ধি করা, ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা, অন্য হাসপাতালে স্থানান্তরের অপসংস্কৃতি বন্ধ করা, রোগী কল্যাণ সমিতির মাধ্যমে হাসপাতাল ক্যাম্পাসে একটি ওষুদের দোকান এবং একটি ক্যান্টিন চালু করা, প্রতি মাসে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভার আয়োজন করা, কমিটির সদস্যগণ নিয়মিত হাসপাতাল কার্যক্রম পরিবীক্ষণ করা, শুক্রবারসহ প্রতিদিন একইভাবে ডাক্তার, নার্সদের দায়িত্ব পালন করাসহ নানামূখী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এম ওয়াকিল, সিভিল সার্জন চিকিৎসক গৌতম রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজীব কুমার সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বাছির উদ্দিন, জামালপুর পৌরসভার মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম মনি, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুম রেজা রহিম, জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আজিজুর রহমান ডল, উন্নয়ন সংঘের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক জাহাঙ্গীর সেলিম, জামালপুর পৌরসভার কাউন্সিলর সায়মা হামজা সিমি প্রমুখ।
হাসপাতাল ব্যবস্থাপনাগত বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সহকারী পরিচালক চিকিৎসক সিরাজুল ইসলাম, আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা চিকিৎসক ফেরদৌস হাসান ও চিকিৎসক শফিকুজ্জামান।
সভার শুরুতেই প্রয়াত জামালপুরের বিশিষ্ট সাংবাদিক শফিক জামান লেবুর অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তার বেদেহি আত্মার শান্তি কামনায়  করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button