Tips And Tricks

স্মার্টফোন কেনার সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার।

 স্মার্টফোন  কেনার সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার। 

PicsArt 10 10 09.30.16

বর্তমানে স্মার্টফোন আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী  হয়ে দাড়িয়েছে। স্মার্টফোন ছাড়া এক মূহুর্ত চিন্তা করতে পারি না,কোননা দৈনদিন ব্যবহার্য সকল কাজই স্মার্টফোনের সাথে জড়িত,দোকান থেকে শুরু করে শপিং, খাবার সবই স্মার্টফোনের সাথে জড়িত।আমরা মূহুর্তের মধ্যে দোকানে না গিয়ে দোকান থেকে মালামাল অর্ডার করতে পারি,ঘরে বসেই খাবার অর্ডার করতে পারি। 

তো নতুন স্মার্টফোন কিনার সময় আমরা  অনেক ভুল করে থাকি,আজকের পোষ্টটি পড়লে, ঐ ভুল আর হবে না মনে করছি,তো চলুন পোষ্টটি দেখে আসি।

 

স্মার্টফোন  কেনার সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার

 

একটি স্মার্টফোন অনেক যন্তাংশ নিয়ে গঠিত,এর প্রত্যেকটি যন্তাংশ নিয়ে, আমাদের জানা অম্ভব, তাই আমরা কিছু কিছু প্রয়োজনীয় বিষয়গুলো জেনে রাখি,যেগুলোর সম্পর্কে ধারনা রাখলে,একটি ভালো মানের স্মার্টফোন কিনতে বা কোন স্মার্টফোন এই বিষয়ে থাকলে বুঝবো, ভালো বা স্টান্ডডার স্মার্টফোন।প্রথমে আলোচনা করবো,,,,

দাম ও বাজেট  

সবার আগে আপনার বাজেটের উপর নজর দিতে হবে।আপনার বাজেটের মধ্যে কোন ফোনটি আছে,কোন কোম্পানির ফোন ও বেস্ট কোন ফিচার আছে তা দেখতে হবে।কারণ আপনার বাজেট কম হলে একটি স্মার্টফোনের সব ফিচার পাবেন না আবার  বাজেটের পরিমাণ যদি কোন লিমিটেশন না থাকে তাহলে লেটেস্ট ফোনটি নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

অপারেটিং সিস্টেম  

ওএস অপারেটিং সিস্টেম বাছাই করা স্মার্টফোনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ফোনের সকল সফটওয়্যার এর উপর নির্ভরশীল,বর্তমানে ব্যবহারকারীর সংখ্যা বিচারে অ্যান্ডুয়েড ব্যবহারকারীর সংখ্যা সবথেকে বেশি।গুগল এটি ফ্রি ও সবার জন্য উন্মুক্ত  করে দেওয়ার জন্য অধিকাংশ কম্পানি এটি ব্যবহার করে থাকে,তাছাড়া বেশির ভাগই অ্যাপ ডেভেলপাররা অ্যান্ডুয়েড অ্যাপ বানাতে অধিক আগ্রহী।কেননা অ্যান্ডুয়েড অধিক ব্যবহার হয়।

অন্যদিকে অ্যাপলের আইওএস অ্যাপলের অধিক জনপ্রিয়  ও বহুল ফিচার সমৃদ্ধ। কিন্তু এর স্মার্টফোন তুলনামূলকভাবে অধিক দাম হওয়াই  সব শ্রেনির লোক এটা ব্যবহার করতে পারে না। 

র্যাম বা RAM 

স্মার্টফোনে দুই ধরনের মেমরি থাকে,একটি হলো র্যাম আর একটি হলো রম। র্যাম হলো অস্থায়ী মেমরি যাতে প্রসেসের ডেটাগুলিকে অস্থায়ীভাবে জমা রাখে।তাই ফোনে রম থেকে র্যামের পরিমান কম থাকে,আপনার ফোনে র্যাম যত বেশি হবে,ফোনটি তত স্মদুলিভাবে কাজ করে এবং ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক অ্যাপ জমা রাখতে পারবেন।

স্টোরেজ বা রম 

সহজভাষায় বলতে রম হচ্ছে ইন্টারনাল স্টোরেজ,যেখানে ছবি,অডিও,ভিডিও ইত্যাদি ফাইল থাকে।এই স্টোরেজ বা রম আপনার প্রয়োজনমত নিতে পারবেন,আজকাল বাজারে ৬৪ জিবি,১৪৮ জিবি রম পাওয়া যায়,আপনার প্রয়োজনমত এটি নিতে ও ব্যবহার করতে পারবেন।

ডিসপ্লে

আপনি যদি এক হাত দিয়ে ফোন ব্যবহার করতে চান তাহলে পাঁচ ইঞ্চির উপরে না যাওয়াই ভালো।আজকাল বাজারে পাঁচ থেকে সাড়ে ছয় ইঞ্চি ডিসপ্লেকে কমন ধরা হয়,তাই এর মধ্যেই নেওয়াই উত্তম হবে।ডিসপ্লে রেজুলেশন বলে ফুলএইচডি নেওয়াই ভালো,আজকাল ডিসপ্লে রেজুলেশন ফুলএইচডি থেকে ৪কে ডিসপ্লে পাওয়া যাই।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button